২৮ Jun ২০২২, ০২:১৩ অপরাহ্ন

অনলাইন সীমান্তবাণী ডেস্ক :  এরাসমাস গবেষণা প্রকল্পের আওতায় তুরস্কের চানকিরি কারাতেকিন বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ জন শিক্ষক। গত শনিবার রাত ১১ টায় তারা হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তুরস্কের উদ্দেশ্যে দেশ ত্যাগ করেছেন। এছাড়া গত ৬ মার্চ ইবির দু’জন গবেষক শিক্ষার্থী তুরস্কে পৌঁছেছেন।

আজ রবিবার ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স ডিভিশনের পরিচালক প্রফেসর ড. শাহাদাৎ হোসেন আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ১৪ মার্চ থেকে এ সফরের মূল কার্যক্রম শুরু হয়ে ১৮ মার্চ পর্যন্ত চলবে। এছাড়া শিক্ষার্থীরা সেখানে তিন মাস গবেষণা কার্যক্রম চালাবেন।

ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স ডিভিশন সূত্রে, এ প্রকল্পের আওতায় তুরস্কের বিশ্ববিদ্যালয়টিতে শিক্ষাদান ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা থাকবে। শিক্ষাদান কার্যক্রমে থাকবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি ও আইসিটি বিভাগের প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান, ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের প্রফেসর ড মনিরুজ্জামান, বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. রেজওয়ানুল ইসলাম।

ট্রেনিং প্রোগ্রামে থাকবেন ইইই বিভাগের প্রফেসর ড. রুহুল আমিন ভূইয়া, প্রফেসর ড. মাঞ্জারুল আলম এবং গণিত বিভাগের প্রফেসর ড. আসাদুজ্জামান। গবেষক শিক্ষার্থীরা হলেন, বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের স্নাতোকোত্তর ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের আঞ্জুমানারা জান্নাতি নূর ও অর্থনীতি বিভাগের স্নাতোকোত্তর ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী নাজমুস সাকিব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠন, পাঠন ও গবেষণা এবং চানকিরি কারাতেকিন বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কারিকুলাম, পাঠদান, গবেষণার ক্ষেত্র এবং তাদের ও আমাদের শিক্ষার্থীরা কীভাবে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে এ বিষয়টি এক্সচেঞ্জ হবে। এতে করে আমাদের একাডেমিক এক্সেলেন্সি বৃদ্ধি পাবে।’

 

গবেষণা প্রকল্পে তুরস্কে গেলেন ইবির আট শিক্ষক-শিক্ষার্থী

অনলাইন সীমান্তবাণী ডেস্ক ; গবেষকদের ধারণা  পৃথিবীতে আমাদের জানা বৃক্ষ প্রজাতির চেয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রজাতি এখনো অজানা রয়েছে। এখনো ৯ হাজারের বেশী প্রজাতি আবিষ্কৃত হয়নি। সোমবার প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়।

গবেষণায় বলা হয়, “বিশ্বজুড়ে বন সংরক্ষণের প্রচেষ্টাকে অবহিত করা, আশাবাদী হওয়া এবং এ বিষয়টিতে অগ্রাধিকার দেয়ার জন্য গাছের প্রজাতির সংখ্যা জানা জরুরি।” মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্সের জার্নাল পিএনএএস এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে, কয়েক ডজন বিজ্ঞানী এই গবেষণায় যুক্ত ছিলেন।
প্রায় ৬৪ হাজার ১০০ প্রজাতির গাছ ইতোমধ্যে শনাক্ত হয়েছে। কিন্তু গবেষণা অনুযায়ি আরো সম্পূর্ণ ডাটাবেজের উপর ভিত্তি এবং পূর্ববর্তী প্রচেষ্টার তুলনায় আরো উন্নত পরিসংখ্যানগত পদ্ধতি ব্যবহার করে দেখা যায় গাছের প্রজাতির মোট সংখ্যা প্রায় ৭৩ হাজার ৩০০ যা পূর্বের চেয়ে ১৪ শতাংশ বেশি। অর্থাৎ ৯ হাজার প্রজাতি এখনও আবিষ্কৃত হয়নি।
গবেষণায় বলা হয়, গাছের সমস্ত প্রজাতির ‘প্রায়’ ৪৩ শতাংশ দক্ষিণ আমেরিকাতে পাওয়া যায়, এর পরে ইউরেশিয়ায় ২২ শতাংশ, আফ্রিকায় ১৬ শতাংশ, উত্তর আমেরিকায় ১৫ শতাংশ এবং ওশেনিয়ায় ১১ শতাংশ।
গবেষকদের হিসাবে শনাক্ত হওয়া প্রজাতির অর্ধেক থেকে দুই তৃতীয়াংশ পাঁচটি মহাদেশের ক্রান্তীয় বা উপ-ক্রান্তীয় রেইনফরেস্টগুলিতে পাওয়া যায়।

বিশ্বে ৯ হাজারের বেশী প্রজাতির গাছ এখনো আবিষ্কৃত হয়নি : সমীক্ষা প্রতিবেদন 

অনলাইন সীমান্তবাণী ডেস্ক ; উড্ডয়নের জন্য প্রস্তুত বিশ্বের প্রথম যাত্রীবাহী সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক প্লেন। অ্যালাইস নামের প্লেনটি তৈরি করেছে ইসরায়েলের একটি এভিয়েশন কোম্পানি। সিয়াটেলের উত্তরে আর্লিংটন মিউনিসিপ্যাল বিমানবন্দরে গত সপ্তাহে এটির ইঞ্জিন পরীক্ষার করা হয় বলে জানান এভিয়েশনের নির্বাহী প্রধান ওমর বার-ইয়োহায়ের। আর মাত্র কয়েক সপ্তাহ পরেই প্রথম ফ্লাইট পরিচালনা করবে অ্যালাইস। মঙ্গলবার (১ ফেব্রুয়ারি) সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

বৈদ্যুতিক গাড়ি বা সেল ফোনের ব্যাটারি প্রযুক্তির মতো একই প্রক্রিয়ায় তৈরি হয়েছে প্লেনটি। মাত্র ৩০ মিনিট চার্জ দিলেই নয়জন যাত্রী নিয়ে এক ঘণ্টায় ৪৪০ নটিক্যাল মাইল উড়তে সক্ষম হবে এটি। এ সময়ে প্লেনটির গতি হবে ঘণ্টায় ২৫০ কেটিএস বা ২৮৭ মাইল প্রতি ঘণ্টায়। একটি বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্সের গতি ঘণ্টায় ৫৮৮ মাইল।

কোম্পানিটির প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে, বৈদ্যুতিক প্লেন ভ্রমণের ওপর। আশা করা হচ্ছে আগামী সাত থেকে ১০ বছরের মধ্যে এ ধরনের প্লেন ২০ থেকে ৪০ জন যাত্রী বহন করতে সক্ষম হবে।

জানা গেছে, প্লেনটির প্রোটোটাইপ আত্মপ্রকাশ করে ২০১৯ সালে। গত ডিসেম্বর থেকে কম-গতির ট্যাক্সি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এটি। তবে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এটি উচ্চ গতির ট্যাক্সি পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যাবে। এই পরীক্ষার মাধ্যমে প্লেনটির বিভিন্ন কার্যক্রম পর্যালোচনা করা হবে।

২০২২ সালের আগেই ফ্লাইট শুর করতে চেয়ে ছিল কোম্পানিটি। তবে বছরের শেষে প্রশান্ত মহাসাগরের উত্তর-পশ্চিমে খারাপ আবহাওয়ায় পরীক্ষা বাধাগ্রস্ত হয়।

প্লেনটির তিনটি প্রোটোটাইপ সংস্করণ তৈরি করেছে কোম্পানি। এরমধ্যে একটি যাত্রীবাহী প্লেন, দ্বিতীয়টি নির্বাহী সংস্করণ ও তৃতীয়টি পণ্য পরিবহনের জন্য কার্গো ভার্সন। যাত্রীবাহী প্লেনটিতে দুইজন পাইলটসহ নয়জন যাত্রীর আসন রয়েছে। তাছাড়া এতে ৮৫০ পাউন্ড পর্যন্ত মালামাল রাখার জায়গা রয়েছে।

উড্ডয়নের জন্য প্রস্তুত বিশ্বের প্রথম যাত্রীবাহী বৈদ্যুতিক প্লেন

স্টাফ রিপোর্টার : ঝিনাইদহের মহেশপুরের কাজীরবেড় ইউনিয়নের সদ্য প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা রায়হান বেগের ছেলে মোঃ আল মামুন বেগ নিজেকে সাম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন ।

মহেশপুরের কাজীরবেড় ইউনিয়নের লালপুর গ্রামের রায়হান উদ্দিন বেগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের জনপ্রেয় নেতা ছিলেন। তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন ৩ বার, নির্বাচিত ইউপি সদস্য ছিলেন ৪ বার এবং তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের  সদস্য হিসেবেও কয়েকবার দায়িত্ব পালন করেন।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে সাম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে তিনি বেশ কয়েক মাস যাবৎ গণসংযোগ চালিয়ে আসছিলেন।

গত ৫ ফেব্রুয়ারী তার নিজ ইউনিযনে রাজনৈতিক শো-ডাউন চলা অবস্থায় তিনি স্ট্রোক করে মৃত্যুবরণ করেন।

জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা রায়হান বেগের মৃত্যুর পর তার অনসারীরা রায়হান বেগের ছেলে কাজীরবেড় ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য মোঃ আল মামুন বেগকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে উদ্বুদ্ধ করায় আল মামুন বেগ নিজেকে সাম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে তার ইউনিয়ন এলাকায় গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

 

 

 

মহেশপুরের কাজীরবেড় ইউনিয়নের সদ্য প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা রায়হান বেগের ছেলে আল মামুন বেগ সাম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টার : ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নাসির উদ্দীন মালিতার নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীরা। গান্না ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীরা তাদের ফেসবুক আইডিতে এই মামলার তিব্র নিন্দা জানিয়ে পোষ্ট দিচ্ছেন।

চেয়ারম্যান নাসির উদ্দীন মালিতা বলেন, দীর্ঘ দিন আগে গান্না ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শান্তি মার্ডার মামলায় আমাকে উদ্দ্যেশ্য প্রণদিতভাবে জড়িয়ে মামলার ৯ নম্বর আসামী করা হয়, পরে নিহতের শ্বশুর সিরাজ উদ্দীন ভুল স্বীকার করে আমার মামলা তুলে নিতে রাজি হন এবং বলেন ভুল করে আমার নাম চলে এসেছে তারা আমাকে ফাসাতে চাননি। পরে জানতে পারি রিমান্ডে খুনিদের মুখ দিয়েও নাকি আমার নাম বলানো হয়েছিলো আমাকে ফাসানোর জন্য। এই মিমাংসার পরেও নির্বাচন সামনে হওয়ায় প্রায় ১০ বছর আগের সেই মিথ্যা মামলা আবার চালু করে আমার ইমেজ নষ্ট করতে উঠে পড়ে লেগেছে একটি চক্র। তারা জননেত্রী শেখ হাসিনার আদর্শে বিশ্বাস করেনা, তারা বিশ্বাস করে সন্ত্রাস, দূর্ণীতি আর খুন খারাপির রাজনীতিতে যা আমি কখনই হতে দেবো না। শান্তি প্রিয় গান্নার মানুষ আমার সাথে আছেন।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ৭ই জুলাই সন্ধ্যায় ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না বাজার থেকে নিজ গ্রাম কাশিমনগর বাড়ি ফেরার পথে খালের ব্রিজের উপরে বোমা হামলায় মারাত্মক আহত হন গান্না ইউনিয়নের তৎকালীন ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন মণ্ডল শান্তি। ঘটনার ৩ দিন পর ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি বিস্ফোরক ও আরেকটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের শ্বশুর সিরাজুল ইসলাম মালিতা। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ৮ আসামিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃতরা হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়। তাদের জবানবন্দির ভিত্তিতে মামলার ৯ নং আসামি হয়ে যান চেয়ারম্যান নাসির মালিতা।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচনে ক্লিন ইমেজের নাসির উদ্দীন মালিতা যেন নৌকা প্রতীক না পান মূলত সেজন্যই এই মিথ্যা মামলায় নতুন করে চেয়ারম্যানের নাম তুলে আনা হয়েছে, তারা আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার এই ডিজিটাল বাংলাদেশে আর এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের স্থান দেবেন না গান্নার সাধারণ ভোটাররা।

ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগ দলীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : পুর্ব শ্রুতার জের ধরে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার নাটিমা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা মন্টু মেম্বার (৫০) কে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে  কতিপয় সন্ত্রসী। এলাকাবাসী গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তী করছে।ে ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৫সপ্টেম্বের বুধবার বিকাল ৫টা দিকে মহেশপুর-ভৈরবা সড়কের নস্তী বাজার এলাকায়।

এ ঘটনায় থানা পুলিশ রাতেই শরীফুল ইসলাম (৪৮) নামের এক জনকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, মহেশপুর উপজেলার উজ্জলপুর গ্রামের গোল্ড ব্যবসায়ী মিলন মিয়ার সাথে ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা মন্টু মেম্বারের র্দীঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। বিরোধের কারণে কয়েকদিন পুর্বে মারামারিও হয়েছে। এ ঘটনার জের ধরেই মন্টু মেম্বারকে হত্যার চেষ্টা করা হয়ছে।ে

আহত মন্টু মেম্বার জানান, উজ্জলপুর গ্রামের গোল্ড ব্যবসায়ী মিলন মিয়া আমাকে হত্যা করার জন্য নস্তী গ্রামের ইয়ার আলী, শরীফুল ইসলাম, তরিকুল ইসলাম, বাবর আলী ও জসিমকে ভাড়া করে। তিনি আরো জানান, আমি বুধবার বিকাল ৫টার দিকে মটর সাইকেল যোগে মহেশপুর থেকে বাড়ী ফেরার সময় নস্তী বাজারে দাড়ানোর সাথে সাথে নস্তী গ্রামের ইয়ার আলী ও শরীফুল ইসলাম আমাকে দা দিয়ে কোপাতে থাকে। পরে বাজারের লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়।

মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান, মন্টু মেম্বারকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনায় নস্তী গ্রামের শরীফুল ইসলামকে আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামীদের আটকরে চেষ্টা চলছে।

 

 

ঝিনাইদহের মহেশপুরে আওয়ামী লীগ নেতা মন্টুকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে কতিপয় সন্ত্রাসী